মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

সেবার নামঃ সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ

সঞ্চয়পত্র বিনিয়োগ স্কীম সমূহ (২৩-০৫-২০১৫ তে বিদ্যমান মুনাফার হার)  

 

পাঁচ বছর মেয়াদী বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্র (প্রবর্তন ১৯৭৭ খি.)

 

কোথায় পাওয়া যায়: জাতীয় সঞ্চয় ব্যুরো, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহ এবং ডাকঘর থেকে ক্রয় ও নগদায়ন করা যায়।

মেয়াদ: ০৫ (পাঁচ) বছর।

মুনাফার হার: মেয়াদান্তে মুনাফা ১১.২৮%। মেয়াদপূর্তির পর নগদায়ন করলে মোট মুনাফা হবে ৫৬,৪০০ (ছাপ্পান্ন হাজার চারশত) টাকা। ৫% হারে উৎস কর কর্তন করলে ২,৮২০ (দুই হাজার আটশত বিশ) টাকা এবং নীট মুনাফা পাবেন ৫৩,৫৮০ (তিপ্পান্ন হাজার পাঁচশত আশি) টাকা। তবে মেয়াদপূর্তির পূর্বে নগদায়ন করলে ১ম বছরান্তে ৯.৩৫%, ২য় বছরান্তে ৯.৮০%, ৩য় বছরান্তে ১০.২৫%, ৪র্থ বছরান্তে ১০.৭৫% হারে মুনাফা প্রাপ্য হবে।

যারা ক্রয় করতে পারবেন:

ক) সকল শ্রেণী-পেশার বাংলাদেশী নাগরিক;

খ) আয়কর বিধিমালা, ১৯৮৪ (অংশ-২) এর বিধি ৪৯-এর উপ-বিধি (২) এ সংঙ্গায়িত স্বীকৃত ভবিষ্যৎ তহবিল এবং ভবিষ্যৎ তহবিল আইন, ১৯২৫ (১৯২৫ এর ১৯ নং) অনুযায়ী পরিচালিত ভবিষ্যৎ তহবিল;

গ) আয়কর অধ্যাদেশ-১৯৮৪ এর ৬ষ্ঠ তফসিল এর পার্ট এ এর অনুচ্ছেদ ৩৪ অনুযায়ী মৎস খামার, হাঁস-মুরগীর খামার, পেলিটেড পোল্ট্রি ফিডস উৎপাদন, বীজ উৎপাদন, স্থানীয় উৎপাদিত বীজ বিপণন, গবাদি পশুর খামার, দুগ্ধৎ এবং দুগ্ধজাত দ্রব্যের খামার, ব্যাঙ উৎপাদন খামার, উদ্যান খামার প্রকল্প, রেশম গুটিপোকা পালনের খামার, ছত্রাক উৎপাদন এবং ফল ও লতাপাতার চাষ হতে অর্জিত আয়-যা সংশ্লিষ্ট উপ-কর কমিশনার কর্তৃক প্রত্যায়নকৃত।

ঘ) নাবালকের পক্ষেও ক্রয় করা যায়।

ক্রয় করতে যা লাগবে:

ক) ক্রেতা ও নমিনী উভয়ের ২ (দুই) কপি করে পাসপোর্ট সাইজের ছবি;

খ) ক্রেতা ও নমিনী উভয়ের ১ (এক) কপি করে জাতীয় পরিচয়পত্র/জন্ম নিবন্ধন সনদ/পাসপোর্টের ফটোকপি।

ক্রয়ের উর্ধ্বসীমা:

ক) ব্যক্তির ক্ষেত্রে : একক নামে ৩০(ত্রিশ) লক্ষ অথবা যুগ্ন-নামে ৬০(ষাট) লক্ষ;

খ) প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে : উর্ধ্বসীমা নেই।

অন্যান্য সুবিধা:

ক) এক মেয়াদের জন্য স্বয়ংক্রিয়ভাবে পুন:বিনিয়োগ সুবিধা বিদ্যমান;

খ) নমিনী নিয়োগ করা যায়/ পরিবর্তন ও বাতিল করা যায়;

গ) হারিয়ে গেলে পুড়ে গেলে বা নষ্ট হলে ডুপ্লিকেট সঞ্চয়পত্র ইস্যু করা যায়।

 

তিন মাস অন্তর মুনাফাভিক্তিক সঞ্চয়পত্র (প্রবর্তন ১৯৮৮ খ্রি.)

 

মেয়াদ: ০৩ (তিন) বছর।

মুনাফার হার: মেয়াদান্তে মুনাফা ১১.০৪% প্রতি তিন মাস অন্তর মুনাফা উত্তোলন করা যায়। ০১ (এক) লক্ষ টাকায় প্রতি তিন মাস অন্তর ২,৭৬০ টাকা মুনাফা পাওয়া যায়। ৫% হারে উৎস কর কর্তন ১৩৮ (একশত আটত্রিশ) টাকা এবং নীট মুনাফা ২,৬২২ (দুই হাজার ছয়শত বাইশ) টাকা। মেয়াদপূর্তির পূর্বে নগদায়ন করলে ১ম বছরান্তে ১০% এবং ২য় বছরান্তে ১০.৫০% হারে মুনাফা প্রাপ্য হবে এবং অতিরিক্ত অর্থ পরিশোধিত হয়ে থাকলে তা মূল টাকা হতে কর্তন করে সমন্বয়পূর্বক অবশিষ্ট মূল টাকা পরিশোধ করতে হবে।

যারা ক্রয় করতে পারবে: সকল শ্রেণী-পেশার বাংলাদেশী নাগরিক।

ক্রয় করতে যা লাগবে:

ক) ক্রেতা ও নমিনী উভয়ের ২ (দুই) কপি করে পাসপোর্ট সাইজের ছবি;

খ) ক্রেতা ও নমিনী উভয়ের ১ (এক) কপি করে জাতীয় পরিচয়পত্র/জন্ম নিবন্ধন সনদ/পাসপোর্টের ফটোকপি।

ক্রয়ের উর্ধ্বসীমা:  একক নামে ৩০(ত্রিশ) লক্ষ অথবা যুগ্ন-নামে ৬০(ষাট) লক্ষ।

অন্যান্য সুবিধা:

ক) ত্রৈমাসিকভিক্তিতে মুনাফা প্রদেয়;

খ) নমিনী নিয়োগ করা যায়/ পরিবর্তন ও বাতিল করা যায়;

গ) হারিয়ে গেলে পুড়ে গেলে বা নষ্ট হলে ডুপ্লিকেট সঞ্চয়পত্র ইস্যু করা যায়।

 

পেনশনার সঞ্চয়পত্র (প্রবর্তন: ২০০৪ খ্রি.)

 

মেয়াদ: ০৫ (পাঁচ) বছর।

মুনাফা: মেয়াদান্তে মুনাফা ১১.৭৬% প্রতি তিন মাস অন্তর মুনাফা উত্তোলন করা যায়। ০১ (এক) লক্ষ টাকায় প্রতি তিন মাস অন্তর ২,৯৪০ টাকা মুনাফা পাওয়া যায়। ৫% হারে উৎসে কর কর্তন ১৪৭ (একশত সাতচল্লিশ) টাকা এবং নীট মুনাফা ২,৭৯৩ (দুই হাজার সাতশত তিরানব্বই) টাকা। মেয়াদপূর্তির পূর্বে নগদায়ন করলে ১ম বছরান্তে ৯.৭০%, ২য় বছরান্তে ১০.১৫%, ৩য় বছরান্তে ১০.৬৫%, ৪র্থ বছরান্তে ১১.২০% হারে মুনাফা প্রাপ্য হবে এবং অতিরিক্ত অর্থ পরিশোধিত হয়ে থাকলে তা মূল টাকা হতে কর্তন করে সমন্বয়পূর্বক অবশিষ্ট মূল টাকা পরিশোধ করতে হবে।

যারা ক্রয় করতে পারবেন: অবসরপ্রাপ্ত সরকারী, আধা সরকারী, স্বায়ত্বশাসিত, আধা-স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা/কর্মচারী, সুপ্রীম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত মাননীয় বিচারপতিগন, সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্য এবং মৃত চাকুরীজীবীর পারিবারিক পেনশন সুবিধাভোগী স্বামী/স্ত্রী/সন্তান।

ক্রয় করতে যা লাগবে:

ক) ক্রেতা ও নমিনী উভয়ের ২ (দুই) কপি করে পাসপোর্ট সাইজের ছবি;

খ) ক্রেতা ও নমিনী উভয়ের ১ (এক) কপি করে জাতীয় পরিচয়পত্র/জন্ম নিবন্ধন সনদ/পাসপোর্টের ফটোকপি।

গ) পেনশনধারীর প্রাপ্ত আনুতোষিক ও ভবিষ্যত তহবিলের মঞ্জরীপত্র।

ক্রয়ের উর্ধ্বসীমা: প্রাপ্ত আনুতোষিক ও ভবিষ্যত তহবিলের অর্থ মিলিয়ে একক নামে সর্বোচ্চ ৫০ (পঞ্চাশ) লক্ষ টাকা।

অন্যান্য সুবিধা:

ক) ত্রৈমাসিকভিক্তিতে মুনাফা প্রদেয়;

খ) নমিনী নিয়োগ করা যায়/ পরিবর্তন ও বাতিল করা যায়;

গ) হারিয়ে গেলে পুড়ে গেলে বা নষ্ট হলে ডুপ্লিকেট সঞ্চয়পত্র ইস্যু করা যায়।

 

পরিবার সঞ্চয়পত্র (প্রবর্তন: ২০০৯ খ্রি.)

 

 

মেয়াদ: ০৫ (পাঁচ) বছর।

মুনাফা: মেয়াদান্তে মুনাফা ১১.৫২% প্রতি মাসে মুনাফা উত্তোলন করা যায়। ০১ (এক) লক্ষ টাকায় প্রতি মাসে ৯৬০ টাকা মুনাফা পাওয়া যায়। ৫% হারে উৎসে কর কর্তন ৪৮ (আটচল্লিশ) টাকা এবং নীট মুনাফা ৯১২ (নয়শত বারো) টাকা মেয়াদপূর্তির পূর্বে নগদায়ন করলে ১ম বছরান্তে ৯.৫০%, ২য় বছরান্তে ১০.০০%, ৩য় বছরান্তে ১০.৫০%, ৪র্থ বছরান্তে ১১.০০% হারে মুনাফা প্রাপ্য হবে এবং অতিরিক্ত অর্থ পরিশোধিত হয়ে থাকলে তা মূল টাকা হতে কর্তন করে সমন্বয়পূর্বক অবশিষ্ট মূল টাকা পরিশোধ করতে হবে।

যারা ক্রয় করতে পারবেন: ১৮ (আঠারো) ও তদুর্ধ্ব বয়সের যে কোন বাংলাদেশী মহিলা, যে কোন বাংলাদেশী শারীরিক প্রতিবন্ধী (পুরুষ ও মহিলা) এবং ৬৫ (পঁয়ষট্টি) ও তদুর্ধ্ব যে কোন বাংলাদেশী (পুরুষ ও মহিলা) নাগরিক।

ক্রয় করতে যা লাগবে:

ক) ক্রেতা ও নমিনী উভয়ের ২ (দুই) কপি করে পাসপোর্ট সাইজের ছবি;

খ) ক্রেতা ও নমিনী উভয়ের ১ (এক) কপি করে জাতীয় পরিচয়পত্র/জন্ম নিবন্ধন সনদ/পাসপোর্টের ফটোকপি।

ক্রয়ের উর্ধ্বসীমা: একক নামে সর্বোচ্চ ৪৫ (পঁয়তাল্লিশ) লক্ষ টাকা।

অন্যান্য সুবিধা:

ক) মাসিকভিক্তিতে মুনাফা প্রদেয়;

খ) নমিনী নিয়োগ করা যায়/ পরিবর্তন ও বাতিল করা যায়;

গ) হারিয়ে গেলে পুড়ে গেলে বা নষ্ট হলে ডুপ্লিকেট সঞ্চয়পত্র ইস্যু করা যায়।

 

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter